আনোয়ারায় জাবেদ-ওয়াসিকা পন্থীদের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

আনোয়ারা প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৭ জুন) বিকেল সাড়ে ৫টায় বন্দর কমিউনিটি সেন্টার এলাকায় সাবেক ভূমিমন্ত্রী স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ও অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়েশা খান সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

আহতরা হলেন—দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এম এ হান্নান মঞ্জু চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক এম এ মান্নান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী, বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, রায়পুর ইউনিয়ন আওয়ামী সহ-সভাপতি তাজউদ্দীন, যুবলীগ নেতা ব্যাংকার সাইফুল।

জানা গেছে, দেশের ৫৩তম ২০২৪-২৫ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে বন্দর কমিউনিটি সেন্টারে সাবেক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের সমর্থকেরা সমাবেশের আয়োজন করে। একই স্থানে অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খানের সমর্থকেরা সমাবেশের ঘোষণা দেয়। বিকেল ৪টায় সমাবেশ হওয়ার কথা থাকলেও দুপুর থেকে এই সমাবেশকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উত্তেজনা দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিকেল ৪টায় সমাবেশ শুরু হওয়ার পর উভয় পক্ষ উস্কানিমূলক স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় পুলিশ উভয় গ্রুপের মাঝে ব্যারিকেড দেয়। কিছুক্ষণ পরই দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জাবেদ গ্রুপের অনুসারি আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, মান্নান চৌধুরী, শাহাদাত হোসেন, সাইফুল গুরুতর আহত হয়েছে। এছাড়া আমাদের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। তারা আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলা করেছে।

হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে ওয়াসিকা গ্রুপের অনুসারি কাজী মুজাম্মেল হক বলেন, আমরা বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে প্রোগ্রাম দিয়েছি সে একই স্থানে তারাও প্রোগ্রামের ঘোষণা দেয়। পরবর্তীতে তারা আমাদের নেতাকর্মীদের উপর হামলা করে। এ সময় আমাদের টিপুসহ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

আনোয়ারা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমেদ বলেন, সকাল থেকে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন ছিলো। পরবর্তীতে তারা পুলিশের ব্যারিকেড উপেক্ষা করে সংঘর্ষে জড়ায়। এরপর অল্প সময়ের মধ্যেই পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সোস্যাল নেটওয়ার্ক

সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত