কেজরিওয়াল ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানির পর মুখ খুলল জাতিসংঘ

এনডিটিভি

আবগারি দুর্নীতি মামলায় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের কেন্দ্রীয় দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিবের এই অবস্থান তুলে ধরেন তার মুখপাত্র স্টেফানে দুজারিক।

কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তারি ও কংগ্রেসের কয়েকজন সদস্যের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করা নিয়ে মার্কিন মন্তব্যের একদিন পর জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এই প্রতিক্রিয়া এলো।

এর আগে কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তারি নিয়ে মন্তব্য করায় বুধবার দিল্লিতে নিযুক্ত মার্কিন দূতাবাসের অন্তর্বর্তীকালীন উপ-প্রধান গ্লোরিয়া বারবেনাকে ডেকে সতর্ক করে ভারত। এদিন দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে পাঠানো হয়েছিল তাকে। প্রায় ৪০ মিনিট পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ছিলেন বারবেনা। এছাড়া জার্মানিও কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তার ইস্যুতে মন্তব্য করায় ক্ষুব্ধ ও কড়া প্রতিক্রিয়া জানায় ভারত।

এদিন সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে দুজারিক মুখপাত্র বলেন, ভারত বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশ। জাতিসংঘের মহাসচিব এবং আমরা খুব আশা করছি অন্য গণতান্ত্রিক দেশের মতো ভারতও প্রত্যেক নাগরিকের রাজনৈতিক ও নাগরিক অধিকারের সুরক্ষা নিশ্চিত করবে। আগামী লোকসভা নির্বাচন এমন পরিবেশে হবে যেখানে সবাই অংশ নিতে পারবেন।

এছাড়া ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে কেজরিওয়ালের রাজনৈতিক ও নাগরিক অধিকার রক্ষায় সচেতন থাকার বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের প্রত্যাশার কথা জানান তিনি। গুতেরেস প্রত্যাশা করেন কেজরিওয়ালের বিচারপ্রক্রিয়া ‘সুষ্টু ও রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত’ হবে।

আবগারি দুর্নীতি মামলায় গত ২২ মার্চ গ্রেপ্তার হন আম আদমি পার্টির প্রধান কেজরিওয়াল। ভারতের অর্থনৈতিক গোয়েন্দা সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টোরেটের (ইডি) অভিযোগ, ২০২১-২২ সালে আবগারি নীতি সংশোধনের মাধ্যমে দিল্লির কয়েকজন মদ বিক্রেতাকে সুবিধা পাইয়ে দিয়েছিলেন কেজরিওয়াল। এর বিনিময়ে ১০০ কোটি রুপি ঘুষ নিয়েছেন তিনি।

তবে কেজরিওয়াল এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন। তিনি আদৌ ঘুষ নিয়েছিলেন কি না— তা নিয়েও সংশয় শুরু হয়েছে। কারণ ওই অর্থ কোথায় তা নিয়ে কিছু বলতে পারেনি ইডি।

সোস্যাল নেটওয়ার্ক

সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত