‘তামিম খেলতে চাইলে কোচকে জিজ্ঞাসা করার কি আছে?’

স্পোর্টস ডেস্ক

তামিম ইকবাল কী আবার জাতীয় দলে ফিরবেন? তার নিজের ইচ্ছাই বা কী? বিপিএল ট্রফি জয়ের পর জনাকীর্ন সংবাদ সম্মেলনে তামিম ইকবাল নিজেই একটা পূর্ব ধারনা দিয়ে গিয়েছিলেন। অনেক কথার ভিড়ে তামিমের মূল কথা ছিল, ‘আমার জাতীয় দলে ফেরার জন্য অনেক কিছু ঠিক-ঠাক হতে হবে।’

এ কথার ভাবার্থ খুঁজতে গিয়ে বেরিয়ে এসেছে অনেক কিছু। এর মানে জাতীয় দলে ফিরতে শুধু তামিমের নিজের ইচ্ছেটাই শেষ কথা নয়। আরও কিছু বিষয় আছে। যেগুলো ঠিক হলেই কেবল তামিম জাতীয় দলে ফিরবেন। সেগুলো কী?

তার মানে নিশ্চয়ই তামিম কিছু শর্ত দিয়েছেন, তা পূরণ ছাড়া তিনি আর জাতীয় দলে ফিরবেন না? এগুলো অনুমান নির্ভর কথা নয়। কিংবা ক্রিকেট পাড়ার গুঞ্জনও নয়। একদম ভেতরের খবর। তামিম জাতীয় দলে ফেরা নিয়ে কিছু অঘোষিত শর্ত জুড়ে দিয়েছেন বা দিতে চান। আরও পরিষ্কার করে বললে শর্ত জুড়ে দেবেন।

যেহেতু তামিমের সাথে এখনো বিসিবি প্রধান তথা ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপনের কথা হয়নি, তাই সরাসরি বলা যাবে না তামিম কি শর্ত জুড়ে দেবেন? তবে ধরেই নেয়া যায় তামিম এমন কিছু বলবেন, যা বিসিবি মানবে কি না, তা নিয়ে খোদ তার নিজেরও সংশয় আছে।

তবে আজ শনিবার বিকেলে তামিমের সে সংশয় দূর করে দিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন, তামিমের জাতীয় দলে ফেরা নিয়ে কোনই জটিলতা নেই। সে চাইলেই জাতীয় দলে খেলতে পারবে।

তামিম ইস্যুতে পাপনের ব্যাখ্যা, ‘ব্যাপারটা সম্ভব কিনা এটা বোঝার জন্য আগে বসতে হবে। তামিমের সঙ্গে বসাটা বড়ই জরুরি। সে জন্য বলেছি, আগে তামিমের পরিকল্পনা শোনার জন্য। তার পরিকল্পনা জানলে আমরা সামনে অগ্রসর হতে পারব। হেড কোচের কথা যদি বলেন, তার সঙ্গে আলাদা করে বসার কিছু আমি দেখছি না। তামিম যদি খেলতে চায় অবশ্যই খেলবে। এ ব্যাপারে আবার কোচকে জিজ্ঞেস করার কি আছে?’

‘কয়েকটা জিনিস আমি বলে রাখি। দল নির্বাচন চূড়ান্ত করা, যেটা বোর্ডের একটা কমিটি আছে, এটার দায়িত্ব ওদের। কে দলে থাকবে, তারা ঠিক করবে। একাদশে কারা থাকবে সেটা আবার তারা ঠিক করে না। সেটা মূলত অধিনায়ক, সঙ্গে কোচেরও বড় মতামত থাকে। কোচ কে হবে, নির্বাচক কে হবে, অধিনায়ক কে হবে, এটা পুরোপুরি বোর্ডের সিদ্ধান্ত। এখানে অন্য কে কি বলল সেটা আমার সিদ্ধান্ত নিতে হয়ত সাহায্য করতে পারে; কিন্তু ওটাই করতে হবে এমন কোনো কথা নেই। সিদ্ধান্ত বোর্ডের।’

তামিমের ফের নিয়ে অনেক ইতিবাচক মানসিকতা দেখালেও বিসিবি প্রধান গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে তামিমের সড়ে দাঁড়ানোর কথা ভোলেননি।

তা উল্লেখ আজ শনিবার বিকেলে পাপন বলেন, ‘তামিম যে একটা সিরিজের মাঝখানে একটা ম্যাচ খেলে খেলা ছেড়ে দিল, ওটা যে কেন ছেড়েছে ওটাই এখনো জানি না। প্রথম সমস্যাই যদি আমরা না জানি, তারপর কি হলো না হলো এগুলো সমাধান দিতে পারবে না।’

‘ওটা জানা দরকার। ও বলেছে বলবে। ওর কথাগুলো শোনা দরকার। কেন সে খেলা ছেড়ে দিয়েছিল। এটা আমাদের কাছে অপ্রত্যাশিত ছিল। তারপর বিশ্বকাপের আগ মুহূর্তে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেওয়া। এই জিনিসগুলো আসলে আমরা ওর সঙ্গে কথা বলার পর আপনাদের সঙ্গে কথা বলা উচিত। আমাদের জানিয়ে দিল অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিবে; কিন্তু কেন কি এটা নিয়ে আলাপ আলোচনা হয়নি।’

সোস্যাল নেটওয়ার্ক

সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত